Home / Bangladesh / গ্রুপিংয়ের শিকার হয়ে আদনান কবির খুন ! উত্তরায় কিশোর সন্ত্রাসবাদ তুঙ্গে

গ্রুপিংয়ের শিকার হয়ে আদনান কবির খুন ! উত্তরায় কিশোর সন্ত্রাসবাদ তুঙ্গে

শরীরে স্ক্রু ড্রাইভার ঢুকিয়ে খুন করা হয়েছে আদনান কবির নামে এক স্কুলছাত্রকে !

রাজধানীর উত্তরায় ডিসকো গ্রুপ ও নাইন স্টার গ্রুপের দ্বন্দ্বের জেরে খুন হয় ট্রাস্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র আদনান কবির (১৪)। এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানা গেছে। পুলিশও একই কথা জানিয়েছে। শুক্রবার ডিসকো গ্রুপের হামলায় নিহত হয় আদনান কবির। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার সাবেক জেলা জজের ছেলে নাফিস মোহাম্মদ আলম ওরফে ডন (১৯) এবং ছাদাফ জাকিরকে (১৬) শনিবার আদালতের মাধ্যমে ১ দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে।

ঘটনার দিন রাতে আদনানের বাবা কবির হোসেন বাদী হয়ে উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি মামলা করেন। মামলায় ৯ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ১০-১২ জনকে আসামি করা হয়েছে। পুলিশ ওই রাতেই নাফিস মোহাম্মদ আলম ওরফে ডন ও ছাদাফ জাকিরকে গ্রেফতার করে। জিজ্ঞাসাবাদে তাদের কাছ থেকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। আর ওই তথ্যের ভিত্তিতে অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এলাকাবাসী জানান, ২ বছর আগে উত্তরা এলাকার কয়েকজন কিশোর-তরুণ মিলে একটি গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করে। এরপর তারা একসঙ্গে আড্ডা ও আনন্দ ফুর্তি করত। বছরখানেক আগে নিজেদের মধ্যে মতবিরোধ দেখা দিলে তারা দুটি ভাগে বিভক্ত হয়ে যায়। এরপর ছোটন এবং ছাদাফসহ কয়েকজন মিলে গড়ে তোলে ডিসকো গ্রুপ। প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে তালাচাবি রাজুর নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠিত হয় নাইন স্টার গ্রুপ। আধিপত্য বিস্তার নিয়ে এ দু’গ্রুপের মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলছিল। নিহত আদনান নাইন স্টার গ্রুপের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিল।

উত্তরা পশ্চিম থানার পরিদর্শক (অপারেশন) শাহ্ আলম জানান, ডিসকো গ্রুপের সদস্যরাই আদনানকে হত্যা করেছে। আদনান এবং গ্রেফতারকৃত ছাদাফ জাকির মাইলস্টোন স্কুলে ক্লাস সেভেন পর্যন্ত পড়েছে।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ৩ জানুয়ারি তুরাগ থানা ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক সফিক, ছাত্রলীগকর্মী রূপক, ছাকিব এবং কমিউনিটি পুলিশের সদস্য ছালাম সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়। এ ঘটনায় পরদিন তুরাগ থানায় মামলা করা হয়। একই দিনে উত্তরা পশ্চিম থানা এলাকার ১৪ নম্বর সেক্টরে জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান বাহাউদ্দিন বাবুলের ভাতিজা দীপু সিকদারকে ছুরিকাঘাত করা হয়। এ দুটি ঘটনার সঙ্গেও ডিসকো গ্রুপ এবং নাইন স্টার গ্রুপের আধিপত্য বিস্তারের সম্পর্ক রয়েছে।

নিহত আদনানের বাবা কবির হোসেন একজন ব্যবসায়ী। তার বাসা উত্তরা ১২ নম্বর সেক্টরের ৫ নম্বর রোডে। গ্রামের বাড়ি চাঁদপুরে। আদনানের চাচা রফিকুল ইসলাম জানান, ব্যাডমিন্টন খেলতে ১৩ নম্বর সেক্টরের ১৭ নম্বর রোডে মুনা নামে বন্ধুর বাসায় যাওয়ার পথে আগে থেকে ওতপেতে থাকা ডিসকো গ্রুপের সদস্যরা চাপাতি এবং দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আদনানকে খুন করে। শনিবার আসরের নামাজের পর উত্তরা ১২ নম্বর সেক্টরের কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়েছে।